29 জুন 2017

নগরীতে চাঁদাবাজিকালে তিন যুবলীগ কর্মী গ্রেফতার

খুলনানিউজ.কম:: নগরীর শঙ্খ মার্কেট এলাকায় একজন ভ্রাম্যমাণ থ্রিপিচ বিক্রেতা মহিলার কাছে চাঁদাবাজিকালে তিন যুবলীগ কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রতে শঙ্খ মার্কেটস্থ দলীয় কার্যালয়ের কাছ থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। মঙ্গলবার ওই তিন চাঁদাবাজকে আদালতে হাজির করলে অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম সুমী আহমেদ তাদের

কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এর আগে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সুব্রত কুমার বিশ্বাস আসামিদের আদালতে হাজির করে ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত কাল বৃহস্পতিবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য্য করেছে।

গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলো,  নগরীর কাস্টমঘাট পুলিশ কোয়াটারের বাসিন্দা মৃত আজাদুল ইসলামের ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম (২৫), টুটপাড়া মহির বাড়ি ছোট খালপাড় এলাকার বাসিন্দা আব্দুর রশিদ শেখের ছেলে মো. রাজীব হাসান (২৮) ও গোবরচাকা গাবতলা মোড় এলাকার বাসিন্দা মৃত রাসেল হোসেনের ছেলে মো. সুমন হোসেন ওরফে আল আমিন (২৮)।
খুলনা সদর থানার ওসি এম এম মিজানুর রহমান জানান, সোমবার বিকেল ৩টার দিকে নগরীর শঙ্খ মার্কেট এলাকায় থ্রীপিস বিক্রি করতে আসে সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলার গোয়ালচর গ্রামের আব্দুল কাদেরের স্ত্রী আকলিমা খাতুন। এসময় সাইফুল, রাজীব ও আল আমিন আকলিমাকে ধরে নিয়ে যায় যুবলীগ অফিসে। সেখানে তারা নিজেদের গোয়েন্দা পুলিশ অফিসার পরিচয় দিয়ে আকলিমার কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। পরে তারা মোবাইল ফোনে আকলিমার মা ও বোনকে ডেকে এনে ওই আফিসে আটক করে। উপায়ন্তর না দেখে আকলিমা শপিং কমপ্লেক্সের এক ব্যবসায়ির নিকট থেকে ৩হাজার টাকা এনে তাদের দেয়। পরে তারা আকলিমার কাছে থাকা ৭টি থ্রীপিসও কেড়ে নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়। পরে আকলিমা ঘটনাটি পুলিশকে জানালে ওই চাঁদাবাজির অভিযোগে যুবলীগের তিন কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় আকলিমা বাদি হয়ে খুলনা থানায় ওই ৩জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেন।

// ১৪-০৬-২০১৭ //